বাংলাদেশ: সোমবার ১৫ আগস্ট ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
৩১ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১৬ মহর্‌রম ১৪৪৪ হিজরি

  বাংলাদেশ: সোমবার ১৫ আগস্ট ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১৬ মহর্‌রম ১৪৪৪ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ৭:০৫ পিএম

আবারও হতাশ করলেন সাকিব

এইনগর খেলাঘর: কলকাতা ইনিংসের ১৯তম ওভারে অদ্ভুত এক দৃশ্য দেখা গেল। ১৮ ওভারের শেষ বলে আউট হয়েছিলেন প্যাট কামিন্স। ২০তম ওভারের প্রথম বলে আউট হলেন আন্দ্রে রাসেল। এই আট বলের মধ্যে ২ উইকেট হারানো ছাড়া কলকাতার স্কোরবোর্ডে পরিবর্তন বলতে শুধু এক রান। ১৩ বলে ৪৪ রানের অসম্ভব মনে না হওয়া লক্ষ্যটা রাসেলের মতো ব্যাটসম্যান স্ট্রাইকে থাকার পরও ৬ বলে ৪৩ রানের অসম্ভব লক্ষ্যে রূপ নিল।

প্রথম দুই ম্যাচে সাকিব আল হাসান ব্যাট হাতে ভালো করেননি। প্রথম ম্যাচে পর্যাপ্ত সুযোগ পাননি। দ্বিতীয় ম্যাচে দলকে জেতানোর সুবর্ণ সুযোগ হেলায় হারিয়েছেন। আজ সে দায় কাটানোর ভালো সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু ব্যাটসম্যান সাকিব আবার হতাশা উপহার দিলেন। যে ম্যাচে দলের জয়ের জন্য প্রায় দুই শ স্ট্রাইকরেটে রান তোলা দরকার এমন ম্যাচেও ব্যাট করলেন ওয়ানডে গতিতে। এর আগে বল হাতেও আলো ছড়াতে পারেননি। সাকিবের মতো ব্যর্থ হয়েছে তাঁর দলও।

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর দেওয়া ২০৫ রানের লক্ষ্যে নামা কলকাতা নাইট রাইডার্স ম্যাচের শেষ দিকে অসহায় আত্মসমর্পণ করে বসেছে। কাইরন পোলার্ড একা কিছুটা চেষ্টা করলেও সেটা প্রয়োজনের তুলনায় বেশিই অপ্রতুল ছিল। পুরো ২০ ওভার খেলে ৮ উইকেটে ১৬৬ রান তুলেছে কলকাতা। ৩৮ রানে হেরে পয়েন্ট তালিকায় ছয় নম্বরে কলকাতা।

প্রথম ম্যাচে ৫ বলে মাত্র ৩ রান করেছিলেন সাকিব। দ্বিতীয় ম্যাচে ৯ বলে ৯ রান করেছিলেন। সবচেয়ে বড় ব্যাপার, তাঁর আউট হওয়াই এক ব্যাটিং ধসের জন্ম দিয়েছিল, যা হার নিশ্চিত করেছিল মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের বিপক্ষে। সে দুই ম্যাচে তবু বল হাতে কিছু করেছিলেন সাকিব।

আজ সাকিব বল হাতেও কিছু করতে পারেননি। ২ ওভারে ২৪ রান দেওয়ার পর আর বোলিং পাননি। যখন ব্যাটিংয়ে নেমেছেন, তখন কিছু করে দেখানোর সুযোগ ছিল। দুই শ ছাড়ানো লক্ষ্যে ৮.৩ ওভারে কলকাতার রান তখন ৭৮।

একদিকে মরগান, অন্যদিকে সাকিব। কিন্তু এ দুজনের জুটিই ম্যাচ থেকে উল্টো যেন ছিটকে দিয়েছে কলকাতাকে। ৩১ বলে ৪০ রানের জুটি এমন এক ম্যাচে দলের কোনো কাজে আসেনি।

মরগানের ২৩ বলে ২৯ রানের ইনিংস শেষ হওয়ার পর সাকিবের দায়িত্ব ছিল রাসেলকে সঙ্গ দেওয়া। ৪ ওভারের জুটিতে ৪১ রান ওঠার পর সাকিব ফিরে গেছেন ১৮তম ওভারে। রাসেলকে সঙ্গ দেওয়া এই জুটিতে সাকিবের অবদান ১১ বলে ১০ রান। এক চার ও এক ছক্কায় ২৫ বলে ২৬ রান করে ফিরেছেন সাকিব। আন্দ্রে রাসেলও ২০ বলে ৩১ রান করে হার মেনেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *