বাংলাদেশ: শুক্রবার ২৮ জানুয়ারি ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
১৪ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: শুক্রবার ২৮ জানুয়ারি ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ৫:১৪ পিএম

খেলার মাঠে বদলাই নিল পাকিস্তান

8 / 100

গত সেপ্টেম্বরে পাকিস্তান গিয়ে নিরাপত্তার অযুহাত দেখিয়ে কোনো ম্যাচ না খেলেই সফর বাতিল করে দেশে ফেরে নিউজিল্যান্ড দল। যা পাক ক্রিকেটের অপূরণীয় ক্ষতিসাধন করে।

বিষয়টিতে তখন থেকেই কিউই বোর্ডের ওপর ফুঁসছিল রমিজ রাজার বোর্ড। একরকম বদলা নেওয়ারও হুমকি দিয়েছিলেন পিসিবি সভাপতি রমিজ রাজ।

যা মাঠের লড়াই ছাড়া উপায় নেই। আর বিশ্বকাপের মতো বড় মঞ্চে সেই বদলাই নিল পাকিস্তান। 

মঙ্গলবার ৮ বল হাতে রেখেই কিউইদের ৫ উইকেটে হারিয়েছে পাকিস্তান।

যদিও নিউজিল্যান্ডের ১৩৫ রানের মামুলি লক্ষ্যের জবাবে ৮৭ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলে হারের শঙ্কায় ভুগছিল পাকিস্তান।

সেই খাদের কিনারা থেকে দলকে টেনে তুলেছেন অভিজ্ঞ তারকা শোয়েব মালিক ও আসিফ আলি। 

৮ বল হাতে রেখেই কিউইদের ৫ উইকেটে হারিয়েছে পাকিস্তান।

শেষ ৩ ওভারে পাকিস্তানের প্রয়োজন পড়ে ২৪ রানের। এমন পরিস্থিতিতে দুর্দান্ত খেলেছেন শোয়েব ও আসিফ।

১৭তম ওভারে আসিফের ছক্কাসহ মোট আসে ১৩ রান। পরের ওভারে আরো চমৎকার খেলেন শোয়েব।

 প্রথম পাঁচ বলে ১৩ রান নেন শোয়েব। সান্টনারের ওই ওভারে মোট আসে ১৫ রান।

অর্থাৎ জয়ের বন্দরে পৌঁছতে শেষ ২ ওভারে প্রয়োজন পড়ে ৯ রানের। ১৯তম ওভারে দ্রুতগতির পেসার ট্রেন্ট বোল্টকে অনায়াসে খেলেই তা পূরণ করে ফেলেন আসিফ।

৮ বল হাতে রেখেই নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছে যায় পাকিস্তান। 

ভারতের বিপক্ষের ম্যাচের মতো দ্বিতীয় ম্যাচেও ভালো খেলেছেন উইকেটকিপার ব্যাটার মোহাম্মদ রিজওয়ান।

তবে আজ দেখেশুনে খেলেছেন এই ওপেনার। ৫ বাউন্ডারিতে ৩৪ বলে ৩৩ করে ইশ সোধির বলে এলবিডব্লিউ হন। যা দলের সর্বোচ্চ।

ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের মতো আজ জ্বলে ওঠেননি অধিনায়ক বাবর আজম। ১১ বলে ৯ রান করে টিম সাউদির বলে সরাসরি বোল্ড হয়ে ফেরেন। 

এরপর ফখর জামান ও হাফিজ সমান ১১ রান করে আউট হলে বিপদে পড়ে পাকিস্তান। সেখান থেকে দলকে টেনে তুলেন শোয়েব মালিক।

২ বাউন্ডরি ও এক ছক্কায় ২০ বলে ২৬ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেছেন তিনি।

১২ বলে ২৭ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে দলের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন আসিফ আলি।

মূলত সুপার টুয়েলভে পাকিস্তানের দ্বিতীয় জয়ে অবদান বেশি বোলারদের।

পাক বোলার হারিস রউফের কাছেই হেরে গেছে কিউইরা। ৪ ওভারে ২২ রান দিয়ে ৪টি মূল্যবান উইকেট শিকার করেছেন তিনি।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে এক উইকেটে ৫৪ রান করে নিউজিল্যান্ড। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ১৩৪/৮ রানে ইনিংস গুটায়। 

৫.২ ওভারে দলীয় ৩৬ রানে মার্টিন গাপটিলকে সাজঘরে ফিরিয়ে পাকিস্তানকে ব্রেক থ্রু উপহার দেন হারিস রউফ। 

এরপর ৫৪ রানে আরেক ওপেনার ড্রাইয়েল মিচেলকে ফেরান ইমাদ ওয়াসিম। নিউজিল্যান্ড শিবিরে তৃতীয় আঘাত হানেন মোহাম্মদ হাফিজ। তার বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন নতুন ব্যাটসম্যান জেমস নিশামও। 

১৩.১ ওভারে দলীয় ৯০ রানে আউট হন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামস। 

১৮তম ওভারে বোলিংয়ে এসে জোড়া আঘাত হানেন হারিস রউফ। তার দ্বিতীয় শিকার হয়ে ২৪ বলে তিনটি বাউন্ডারির সাহায্যে ২৭ রান করে ফেরেন ডেভন কনওয়ে।  এক বলের ব্যবধানে ফেরেন গ্লেন ফিলিপসও। তাকে ১৩ রানে আউট করেন রউফ। 

১৯তম ওভারে বোলিংয়ে এসে মাত্র ৬ রান দিয়ে টিম সিপার্টের উইকেট তুলে নেন শাহিন শাহ আফ্রিদি। এদিন চার ওভারে ২১ রানে এক উইকেট নেন এই তারকা পেসার। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *