বাংলাদেশ: শুক্রবার ২০ মে ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: শুক্রবার ২০ মে ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ৭:১৫ পিএম

জেলাজুড়ে শাপলা ও পদ্মফুলের বাহার দর্শনার্থীদের ভিড়

8 / 100

মফিজুল ইসলাম মফি, কক্সবাজার: প্রতিদিন সূর্যোদয়ের সঙ্গে পানিতে ভেসে উঠছে পদ্মফুল। আর এই দৃষ্টিনন্দন দৃশ্য দেখতে ভিড়ও জমাচ্ছেন দর্শনার্থীরা। জেলার বিভিন্ন উপজেলার পুকুর ও জলাশয়ে এমনটি দেখা মিলছে।  

আজ চকরিয়া ও পেকুয়া উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে জলাশয়ে অনিন্দ্য এই ফুল প্রতিবেদকের দৃষ্টি কাড়ে। সৌন্দর্যের কারণে জলজ ফুলের রানী বলা হয় পদ্মফুলকে। আগে বর্ষা ও শরৎকালে বিলঝিলের পানিতে ফুটতে দেখা যেত মনোহারি পদ্মফুল।

কিন্তু দেশের জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে অনেক জলজ উদ্ভিদ এখন প্রায় বিলুপ্ত হতে চলেছে। আগের মতো বিলঝিলের জৌলুসতা এখন নেই।

উদ্ভিদবিদের মতে, পদ্মর সুবাস শাপলার চেয়ে তুলনামূলক বেশি। তবে দুটোই দুই ধরনের জাত। ফুল ও পাতাও আলাদা। শ্রাবণ থেকে আশ্বিন মাস পর্যন্ত গ্রামীণ জনপদে শাপলা ও পদ্মর খোঁজ মেলে। প্রতিদিন স্থানীয় দর্শনার্থীরা এসব দেখতে মনোরম পরিবেশে মগ্ন হয়ে যান। সেখানে যেন পদ্মফুলের সমাহার।

এখানে ঘুরতে আসা মোহাম্মদ ফায়সাল জানান, একই সঙ্গে দুটি সৌন্দর্য উপভোগ করা যায় এখানে। পদ্মফুলগুলোর সৌন্দর্য উপভোগ করার মতোই। প্রত্যেকদিন অফিসে যাওয়ার পথে এ স্থানে পাঁচ মিনিট সময় নিয়ে দৃশ্যটি উপভোগ করি। জলজ উদ্ভিদ শাপলা ও পদ্ম প্রাকৃতিকভাবে জন্মে থাকে। তবে বিলঝিল, জলাশয়, ডোবা ভরাট হয়ে যাওয়ায় এগুলো এখন অনেকটাই বিলুপ্তির পথে বলে জানালেন নদী বন্ধু সরওয়ার আলম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *