বাংলাদেশ: শুক্রবার ১ জুলাই ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
১৭ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১ জিলহজ ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: শুক্রবার ১ জুলাই ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৭ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ১ জিলহজ ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ৭:০৫ পিএম

নতুন বছর শুরু হবে শৈত্যপ্রবাহের দিয়ে

17 / 100

facebook sharing button
messenger sharing button
whatsapp sharing button
twitter sharing button
linkedin sharing button
শৈত্য প্রবাহ

শীতকাল আসার দেড় মাস পার হলেও দেশের বেশির ভাগ এলাকায় এখনো তেমন শীত নামেনি। কিন্তু আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, নতুন বছরের শুরু থেকে শীত  জেঁকে বসবে। 

চলতি মাসে দুই থেকে তিনটি শৈত্যপ্রবাহের পূর্বাভাস থাকলেও উত্তরাঞ্চলসহ কয়েকটি এলাকার অধিবাসীরা মাত্র একবার শৈত্যপ্রবাহ পেয়েছেন। তবে ঢাকা, চট্টগ্রামের মতো বড় শহরগুলোতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে ছিল।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, নতুন বছরের শুরু থেকে শীত বাড়বে। উত্তরাঞ্চলের কয়েকটি জেলায় এরই মধ্যে শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়ে গেছে। আগামীকাল শনিবার থেকে দেশের আরও কয়েকটি এলাকায় শৈত্যপ্রবাহ ছড়িয়ে পড়তে পারে।

কারণ হিসেবে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, শীতের বাতাস আসার পথে ভূমধ্যসাগর থেকে আসা মেঘ আর জলীয় বাষ্পপূর্ণ উষ্ণ বাতাস  প্রধান বাধা ছিল । শুক্রবার থেকে তা সরে গেছে। ফলে তাপমাত্রা দ্রুত কমতে শুরু করেছে।

এ প্রসঙ্গে আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আবদুল মান্নান গণমাধ্যমে বলেন, ডিসেম্বরে বঙ্গোপসাগর ও ভূমধ্যসাগরে একাধিক নিম্নচাপের কারণে প্রচুর মেঘ আসায় শীতের বাতাস ঠিকমতো সারা দেশে ছড়াতে পারেনি। যে কারণে ডিসেম্বরে স্বাভাবিকের চেয়ে এক থেকে দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বেশি ছিল। জানুয়ারি এমনিতেই আমাদের সবচেয়ে শীতল মাস। আর মেঘ সরে যাওয়ায় শীত বেড়ে যাওয়ার সব শর্ত পূরণ হচ্ছে। ফলে নতুন বছরের প্রথম মাসেই শীত বাড়বে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের কাছে থাকা গত ৩০ বছরের রেকর্ড অনুযায়ী, জানুয়ারি মাসে তিন থেকে চারটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যায়। মূলত দেশের উত্তরাঞ্চল, যশোর-চুয়াডাঙ্গা, মৌলভীবাজার ও রাজশাহী বিভাগে শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যায়। এই মাসে সর্বনিম্ন গড় তাপমাত্রা থাকে ১২ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর মধ্যে সবচেয়ে কম তাপমাত্রা থাকে শ্রীমঙ্গলে সাড়ে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ ছাড়া চুয়াডাঙ্গা, নীলফামারী, পঞ্চগড় ও লালমনিরহাটের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা প্রায় মাসজুড়ে শৈত্যপ্রবাহের কাছাকাছি থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *