বাংলাদেশ: শনিবার ১৫ জানুয়ারি ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
১ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: শনিবার ১৫ জানুয়ারি ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ৬:৩৯ পিএম

শ্রেণিকক্ষে ময়লা: অধ্যক্ষ ও শিক্ষা কর্মকর্তা বরখাস্ত

8 / 100

এইনগরে অনলাইন ডেস্ক: শ্রেণিকক্ষে ময়লা পাওয়ায় আজিমপুর গভর্নমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। সেই সঙ্গে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের এক কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।  তিনি অধ্যক্ষের নেতৃত্বে গঠিত মনিটরিং টিমের সদস্য।

করোনার কারণে দেড় বছর বন্ধ থাকার পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার প্রথম সকালে রোববার এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পরিদর্শনে যান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।  নির্দেশনা অমান্য করায় তাদের সাময়িক বরখাস্তের নির্দেশ দেন মন্ত্রী।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, এখন থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সারপ্রাইজ ভিজিট চলবে। স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে কোনো অবহেলা পেলে প্রতিষ্ঠান বা সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পরিদর্শন শেষে মন্ত্রী বলেন, করোনা ও ডেঙ্গি থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষাব্যবস্থা পর্যবেক্ষণে গিয়ে কোনো অনিয়ম পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মরা আজ এখানে জানিয়ে এসেছি।  তবে প্রায়শই না জানিয়ে সব জায়গায় যাব।  কোথাও যদি কোনো অনিয়মের ব্যত্যয় দেখি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  সেখানে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক, অধিদপ্তরের কর্মকর্তা যেই থাকুক তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে সবার সচেতনতা একরকম নয়।  যারা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে যাবেন, তাদের একটু সচেতন থাকতে হবে।  স্কুলের প্রতিটা আনাচে-কানাচে খুঁজে দেখতে হবে।  কোথাও যেন ময়লা না থাকে। যতটা ভালো পারা যায়, আমরা চেষ্টা করছি।  বিষয়টি মনিটরিংয়ের জন্য প্রত্যেক জেলায় একটি কন্ট্রোলরুম করা হয়েছে।  পরে এর নম্বরগুলো প্রচার করা হবে।  যে কেউ এসব নম্বরে ফোন করে যদি জানান, যে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যে কোনো রকম সমস্যা আছে আমরা তা সমাধানে ব্যবস্থা নেব।

এ সময় দীপু মনি বলেন, করোনার কারণে বন্ধ থাকায় ঘাটতি পূরণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ক্লাস নেওয়া হবে। এ ছাড়া অবস্থা আরও ভালো হলে জেএসসি পরীক্ষাও হবে।  

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চলার সময় ফটকের বাইরে ভিড় না করতে অভিভাবকদের প্রতি অনুরোধ জানান শিক্ষামন্ত্রী।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুক। যুগান্তর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *