বাংলাদেশ: রবিবার ২৯ মে ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ২৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরি

  বাংলাদেশ: রবিবার ২৯ মে ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ২৭ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরি  

শেষ আপডেটঃ ৬:৫২ পিএম

স্বাস্থ্যবিধির বিষয়টি কঠোর নজরদারিতে রেখেছি ॥ শিক্ষামন্ত্রী

8 / 100

এইনগরে অনলাইন ডেস্ক: স্বাস্থ্যবিধির বিষয়টি আমরা কঠোর নজরদারিতে রেখেছি বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পর থেকে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে কিনা, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা হচ্ছে কিনা, শ্রেণি পাঠদান ঠিকমতো হচ্ছে কিনা, তা যাচাইয়ে কাউকে না জানিয়েই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে যাবেন বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।প্রতিষ্ঠানের কোথাও দৃশ্যমান আবর্জনা বা লক্ষণীয় হলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

আজ রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ পরিদর্শনে এসে তিনি এসব কথা বলেন।এসময় ডেঙ্গুর বিষয়েও সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘এখানে জানিয়ে এসেছি। অনেক জায়গায় না জানিয়ে চলে যাবো। গ্রামাঞ্চলের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন অনেক ভালো। গত সাত দিনে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কত জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘কত শতাংশ শিক্ষার্থী আসছে, আমরা তথ্য পাচ্ছি। আমরা শিগগিরই (দুই-একদিনের মধ্যে) সঠিত তথ্য তুলে ধরে ব্রিফ করবো। সেই সংখ্যার দিকে এখন আমি যাচ্ছি না।’

ডা. দীপু মনি বলেন, প্রাথমিকভাবে পর্যবেক্ষণ চলছে। সংক্রমণের হার কমে এলে সব ক্লাসই নেওয়া যাবে। তবে সংক্রমণের হার যদি বেড়ে যায়, তখন পরিস্থিতি অনুযায়ী কারিগরি কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সিন্ডিকেট ও অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল সিদ্ধান্ত নিয়ে ২৭ সেপ্টেম্বরের পর যে কোনো দিন বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দিতে পারবে বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সব শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীকে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে করোনা প্রতিরোধী টিকার জন্য সুরক্ষা অ্যাপে নিবন্ধন সম্পন্ন করতে হবে। এ প্রক্রিয়া শেষে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে টিকা নিতে পারবেন। স্থানীয় টিকাকেন্দ্রেও টিকা নেওয়া যাবে। টিকা দেওয়া শেষে অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খোলা যাবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি, স্বাস্থ্যবিধি মেনে পুরোদমে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করতে। বিশ্ববিদ্যালয় খোলার বিষয়েও আমাদের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এরইমধ্যে উপাচার্যদের এ সংক্রান্ত নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এর আগে যাত্রাবাড়ী তামিরুল মিল্লাত কামিল মাদরাসা, বেইলি রোডের ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ পরিদর্শন করেন শিক্ষামন্ত্রী। এসময় প্রতিষ্ঠান প্রধান ও অন্যান্য শিক্ষকরা উপস্থিত ছিলেন।

পরিদর্শন করা বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা মাস্ক পরেছে, তারা সবাই বলেছে— হাত সেনিটাইজড করেছে। পরিষ্কারের কাজ সব সময় চলতে থাকবে। এক দিনেই সবটা আশা করতে পারি, তা নয়। তবে সবার চেষ্টা রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর কেউ কেউ খুব ভালো করছেন। কেউ কেউ কোনোদিনই আগে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করেননি, তারাও এখন পরিষ্কার-পচ্ছিন্ন করছেন। অনাভ্যাসের কারণে আমাদের প্রত্যাশার স্তরের হয়তো অনেকে পৌঁছাতে পারছেন না। তবে এই অভ্যাসগুলো সমাজে বিস্তৃত করতে হবে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পর থেকে শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যবিধি মানলেও অধিকাংশ জায়গায় অভিভাবকেরা সেটা মানছেন না জানিয়ে সবাইকে আরও সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *